বৃহঃস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪ । ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্মার্ট বাংলাদেশের জন্য এফবিসিসিআইয়ে স্মার্ট নেতৃত্ব দরকার: মাহবুবুল আলম

অনলাইন ডেস্ক »

নিউজটি শেয়ার করুন

এফবিসিসিআইয়ের পরবর্তী সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেছেন, ‘২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার জন্য দরকার ট্রিলিয়ন ডলার অর্থনীতি। আর তার জন্য দরকার ব্যবসায়ীবান্ধব স্মার্ট লিডারশিপ।’

আজ সোমবার (১৭ জুলাই) নগরীর রেডিসন ব্রুু হোটেল বে-ভিউতে এফসিসিআই নির্বাচন ২০২৩-২০২৫ উপলক্ষে ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের ‘ট্রিলিয়ন ডলার অর্থনীতির যাত্রায় বন্দর নগরীর তাৎপর্য’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

মাহবুবুল আলম বলেন, ‘২০০৮ সালে বাংলাদেশের অর্থনীতি ছিল ১০০ বিলিয়ন। এ মুহূর্তে এখন ৪৫৭ বিলিয়ন ডলারের অর্থনীতির দেশ বাংলাদেশ। বাংলাদেশে এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে, তা আপনারা দেখছেন। ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। স্মার্ট বাংলাদেশ করতে গেলে আমাদের দরকার ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতি। স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার জন্য স্মার্ট সরকার দরকার, স্মার্ট সমাজ দরকার, স্মার্ট বিজনেসম্যান দরকার। আমরা যদি স্মার্ট না হই, বিজনেস কমিটি স্মার্ট না হয়, তাহলে স্মার্ট বাংলাদেশ করা কীভাবে হবে? সেজন্য আমরা স্মার্ট নেতৃত্ব গড়ে তোলরার জন্য প্রবীণ-নবীনের সমন্বয়ে কাজ করছি। আগামী দিনে এফবিসিসিআইয়ে যদি স্মার্ট নেতৃত্ব আসে তাহলে স্মার্ট অর্থনীতি হবে এবং স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে আমরা একধাপ এগিয়ে যাব।’

তিনি আরও বলেন, ‘ব্যবসার জন্য বড় প্রয়োজন শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি ও সুন্দর পুরিবেশ। সুন্দর পরিবেশ না থাকলে আমরা ব্যবসা করতে পারব না। হরতাল অবরোধ চাই না, আমরা ব্যবসা করতে চাই। ব্যবসায়ীরা সবাই এটা চাই, যেন সবাই শান্তিপূর্ণ ব্যবসা করতে পারে। দেশের উন্নয়নের জন্য রাজনৈতিক শান্তি পরিবেশ প্রয়োজন। ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতির জন্য…, আমাদের এলএনজি আসছে, ১০০টা ইকোনমিক জোন হয়েছে, বঙ্গবন্ধু শিল্পনগরে ৬ হাজার একর জায়গা দেওয়া হয়েছে, সেক্টরভিত্তিক উন্নয়ন হচ্ছে এবং বড় বড় শিল্প আমাদের দেশে গড়ে উঠছে। এটার জন্য ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতি সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন। গার্মেন্টস ছাড়াও ফার্মাসিটিক্যাল এ আমরা এগিয়ে যাচ্ছি, আমেরিকায়ও আমাদের ফার্মাসিটিক্যাল যাচ্ছে। আমরা আশাবাদী ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতির জন্য আমাদের পরিষদকে সকলে সুযোগ করে দিবে।’

একই অনুষ্ঠানে ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসি.র ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও সিইও এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক পদপ্রার্থী গোলাম মোরশেদ বলেন, ‘দীর্ঘদিন পর নির্বাচন হচ্ছে। আমসাদের প্যানেলটি সাজানো প্রবীণ ও নবীনের সমন্বয়ে। সামনের যে স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আমরা সেটাকে সামনে রেখে স্মার্ট ব্যবসায়ী গড়ে তোলার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছি। আমরা আশা করি, সবাই আমাদের সাথে থাকবেন। এ প্যানেল জয়ী হলে এফবিসিসিআইকে নতুনমাত্রায় নিয়ে যেতে পারব, আমরা সে প্রত্যয়ে কাজ করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের প্যানেলে যে ২৩ জন আছেন, তারা একেকটি সেক্টরে আছেন। সবাই যার যার সেক্টর নিয়ে দেশকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য কাজ করছেন। আমাদের চেষ্টা থাকবে মানুষের যেন ভোগান্তি না হয়। পাশাপাশি দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রাখার জন্য আমরা যে তরুণ আছি সবাই প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। কাজ করার অঙ্গীকার নিয়ে আমরা জনবান্ধব ও ব্যবসায়ীবান্ধব এফবিসিসিআই গড়ে তুলব।’

ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের প্যানেল লিডার মাহবুব আলমের নেতৃত্বে পরিচালক পদে প্রার্থীরা হলেন- ড. কাজী এরতেজা হাসান, ড. নাদিয়া বিনতে আমিন, এনায়েত উল্যাহ সিদ্দিকী, রাশেদুল চৌধুরী (রনি), মোহাম্মদ খোরশেদ আলম, মো. নিয়াজ আলী চিশতী, শমী কায়সার, হাফেজ হারুন অর রশীদ, মো. শাহীন আহমেদ,আব্দুল হক, আসলাম সেরনিয়াবাত, আমজাদ হোসেন, গোলাম মুর্শেদ, আবু মোতালেব, মোহাম্মদ আমিন হেলালী, কাউসার আহমেদ, এমএ মোমেন, মানতাশা আহমেদ, রাব্বানি জাব্বার, মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন, মোহাম্মদ আলাউদ্দিন মালিক, রাকিব মোহাম্মদ ফখরুল (রকি), খন্দকার রুহুল আমিন, এজাজ মোহাম্মদ প্রমুখ।

আপনার মন্তব্যটি লিখুন
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »