শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪ । ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জাতির পিতা রক্ত দিয়ে আরও বেশি ঋণী করে গেছেন: ড. কাজী এরতেজা হাসান

অনলাইন ডেস্ক »

নিউজটি শেয়ার করুন

সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম সহ-সভাপতি, দৈনিক ভোরের পাতা,দ্য ডেইলি পিপলস্ টাইমের সম্পাদক ও প্রকাশক এবং এফবিসিসিআইয়ের সাবেক পরিচালক ড.কাজী এরতেজা হাসান সিআইপি বলেছেন,জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রক্ত দিয়ে আরও বেশি ঋণী করে গেছেন। তাঁর রক্তের ঋণ আমরা কখনও শোধ করতে পারবো না।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার (১৫ আগস্ট) দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে তিনি সকালে শহরের খুলনা রোড মোড়ে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. কাজী এরতেজা হাসান বলেন, বঙ্গবন্ধুর মতো সাহসী, দূরদর্শী ও দেশপ্রেমিক নেতৃত্ব ছিল বলে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। এটা আমাদের সৌভাগ্য। আমরা বঙ্গবন্ধুর কাছে ঋণী। বঙ্গবন্ধু রক্ত দিয়ে আরও বেশি ঋণী করে গেছেন। তাঁর রক্তের ঋণ শোধ করতে পারবো না। কাজের মাধ্যমে তার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে পারবো। ১৫ আগস্ট বাংলাদেশের ইতিহাসের একটি কলঙ্কময় দিন। স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের হত্যার কলঙ্ক বাঙালিকে আজীবন বয়ে বেড়াতে হবে। এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি যেন আর না ঘটে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যা বাঙালি জাতির জন্য একটি দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। যার হাত ধরে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে, যিনি দেশকে স্বাধীনতা,একটি পতাকা উপহার দিয়েছেন তাকে এমন নির্মমভাবে হত্যা করা হবে যেটা কেউ কখনও ভাবেনি। খুনিরা শুধু বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেই ক্ষান্ত হয়নি। তাঁর পরিবারের প্রত্যেক সদস্যকে, এমনকি শিশু রাসেলকে পর্যন্ত তারা নৃশংসভাবে হত্যা করেছে। পৃথিবীর কোনো ধর্ম, কোনো মানবিক মূল্যবোধ এই হত্যাকাণ্ডকে সমর্থন করতে পারে না।

ভোরের পাতা ও দ্য ডেইলি পিপলস্ টাইমের সম্পাদক বলেন, বঙ্গবন্ধু কখনও হত্যা, ঘৃণা, সাম্প্রদায়িকতা সমর্থন করেননি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে রক্ষা করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান বজায় রাখতে হবে। বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নত হচ্ছে। জাতীয় স্বার্থ রক্ষা করে উন্নত দেশ, স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে সবাই মিলে কাজ করবো।ইনশাআল্লাহ

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর মতো সাহসী, দূরদর্শী ও দেশপ্রেমিক নেতৃত্ব ছিল বলে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। এটা আমাদের সৌভাগ্য। আমরা বঙ্গবন্ধুর কাছে ঋণী। বঙ্গবন্ধু রক্ত দিয়ে আরও বেশি ঋণী করে গেছেন। তাঁর রক্তের ঋণ শোধ করতে পারবো না। কাজের মাধ্যমে তার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে পারবো।’

স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশের অর্থনীতি নিয়ে ড. কাজী এরতেজা হাসান বলেন, ১৯৭১ সালে বৈদেশিক রিজার্ভ ছিল শূন্য৷ সে সময় অন্যদেশের সঙ্গে বিনিময় প্রথার মাধ্যমে প্রয়োজনীয় পণ্য আমদানির শুরু করে সরকার। পাট ও চামড়া ছিল বাংলাদেশের বিনিময় পণ্য। তবে ২০০৯ সাল থেকে আওয়ামী লীগ টানা ক্ষমতায় থাকায় আজ দেশের রিজার্ভ দাঁড়িয়েছে ২৯৭৩২.১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার৷ বাংলাদেশ আজ বিশ্বের বুকে উন্নয়নের রোল মডেল৷ তাই এই উন্নয়নকে অব্যাহত রাখতে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করার আহ্বান জানান তিনি৷

পরে বেলা সাড়ে ১১টায় পাসপোর্ট অফিস সংলগ্ন এলাকায় জেলা তাঁতী লীগের খাদ্য বিতরণ কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন তিনি। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা যুব লীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল মান্নান, জেলা তাঁতী লীগের সভাপতি কাজী মারুফ ও সাধারণ সম্পাদক শেখ আলমগীর হোসেন সহ তাঁতী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

এরপর শহরের ইটাগাছা, কুখরালী, পার কুখরালী, চালতেতলা, গড়ের কান্দা, বদ্দিপুর কলোনি ও আলিয়া মাদ্রাসা এলাকায় যুব লীগের আয়োজনে খাদ্য বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন তিনি, এসময় তার সফর সঙ্গী ছিলেন জেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক আব্দুল মান্নান, পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক মনোয়ার হোসেন অনু, জেলা তাঁতী লীগের সভাপতি মারুফ হাসান, সাধারণ সম্পাদক শেখ আলমগীর হোসেন, পৌর যুবলীগের সদস্য সচিব তুহিনুর রহমান তুহিন, ছাত্রলীগ নেতা জুবায়ের আল জামান প্রমুখ সহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

আপনার মন্তব্যটি লিখুন
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »